Khabar AajkalNewsPopular

সৎ মায়ের সঙ্গে বিবাদ,ঘর থেকে উদ্ধার হলো কিশোরীর মৃতদেহ!!

সৎ মায়ের সঙ্গে বিবাদ,ঘর থেকে উদ্ধার হলো কিশোরীর মৃতদেহ!!

কৌশাম্বীর পিপরির কাসেন্দা গ্রামে বুধবার রাতে সন্দেহজনক পরিস্থিতিতে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। জানা গিয়েছে,মৃতদেহটি পড়ে ছিল ঘরে এছাড়াও গলায় ফাঁসের চিহ্ন রয়েছে সেই কিশোরীর।

স্থানীয় বাসিন্দাদের থেকে জানা যায়, রাতে সৎ মায়ের সঙ্গে ওই কিশোরের কথা কাটাকাটি হয় মধ্যরাতে পর্যন্ত চলতে থাকে বিবাদ তারপর হঠাৎ সবাই চুপ হয়ে যায়। সকালে জানা যায় মেয়েটি মারা গেছে। সৎ মা জানিয়েছেন, মেয়েটি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটির খবর পেয়ে তদন্ত শুরু করে পুলিশ।এবং সিও ছায়াল পিপড়ি পুলিশ সৎ মা ও আশেপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। পুলিশ বলছে, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পিএম রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

কাসেন্দা গ্রামের বাসিন্দা জ্ঞান সিং যাদবের ছেলে রোশন লাল একজন ট্রাক চালক। তার প্রথম স্ত্রী প্রায় 12 বছর আগে মারা যান। তিন মেয়ে ও এক প্রতিবন্ধী ছেলেসহ তার চার সন্তান ছিল। জ্ঞানের দ্বিতীয় স্ত্রী আসার সঙ্গে সঙ্গে সন্তানদের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেন বলে অভিযোগ। দুই মেয়ের বিয়ে হয়েছে। প্রতিবন্ধী ছেলেটি প্রায় পাঁচ বছর আগে মারা যায়। তিন নম্বর 16 বছর বয়সী মেয়ে গুদিয়া তার সৎ মা এবং তার সন্তানদের সাথে থাকতেন। বুধবার রাতে ট্রাক নিয়ে বালিয়া জেলায় গিয়েছিলেন জ্ঞান। বৃহস্পতিবার সকালে মেয়ে গুদিয়ার মৃত্যু নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।ঘর থেকে তার মৃতদেহটি পড়ে থাকতে দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, তার মাথায় গভীর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। রক্তপাত ও হচ্ছিল।গলার সামনের অংশে ফাঁসের চিহ্ন রয়েছে।

এলাকার লোকজন জানায়, বুধবার মধ্যরাত পর্যন্ত সৎ মায়ের সঙ্গে গুড়িয়ার বিবাদ চলছিল। রাত একটার দিকে জোরে হাতাহাতির পর দুজনেই শান্ত হয়। সকালে গুড়িয়ার মৃত্যুর আওয়াজ শুনলে সবাই হতবাক হয়ে যায়। আশেপাশের লোকজন ফোনে ঘটনাটি গুড়িয়ার বাবা জ্ঞানকে জানায়। তিনি বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। মানুষ আতঙ্কিত অবস্থায় সৎ মা একে আত্মহত্যা বলে অভিহিত করেছেন।

Related Articles

Back to top button