National North Bengal Siliguri WestBengal

করোনা মোকাবিলায় যুদ্ধ পরিস্থিতি তে কাজ করছেন ডাক্তার থেকে প্রশাসনিক কর্তারা।

হরিশ্চন্দ্রপুর: করোনা মোকাবিলা তে যুদ্ধোত্তর পরিস্থিতিতে কাজ করছেন প্রশাসনিক কর্তা থেকে শুরু করে ডাক্তার-নার্সরা। পরিবার-পরিজনদের আশঙ্কার কথা মাথায় না রেখেই সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে 24 ঘণ্টা লাগাতার কাজ করেছেন তারা। তাদের সকলের বক্তব্য ফুটে উঠেছে এলাকায় আতঙ্ক মুক্ত করা।কোন মানুষ যাতে চিকিৎসা বা অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা না পেয়ে খালি হাতে বাড়ি ফিরে যায় এদিকে নজর রাখা।
এ প্রসঙ্গে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর 1 ব্লক মেডিকেল অফিসার অমল কৃষ্ণ মণ্ডল জানালেন আমাদের হাসপাতালের সকল ডাক্তারবাবু নার্সরা লাগাতার পরিশ্রম করছেন 24 ঘন্টা ধরে।এলাকার পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। এগুলো প্রশংসা না করে পারা যায় না। আমাদের বাড়ির লোকেরা আমাদের জন্য চিন্তিত। কিন্তু দায়িত্বকে আমরা অবহেলা করতে পারি না।তাই শত অসুবিধা থাকলেও আমরা রোগীদের মুখ চেয়ে দেশের মুখ চেয়ে কাজগুলি করছি যাতে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ কে আটকানো যায়।
হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় কুমার জানালেন হরিশ্চন্দ্রপুর থানার সমস্ত অফিসার ও কর্মচারীরা এলাকার আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে সর্বক্ষণ সচেতন হয়ে কাজ করছেন।আমরা এলাকার বিভিন্ন গ্রামেগঞ্জে মাইকিং করছি পোস্টারিং করছি যাতে কোনরকম গুজব না ছড়ায় লোকজন যেন অযথা আতঙ্কিত না হয়। বাইরে থেকে কেউ আসলে তাকে তৎক্ষণাৎ হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য। এর মাঝেও আমাদের পরিবার আমাদের নিয়ে চিন্তিত।কিন্তু কিছু করার নেই আমাদের ডিউটি টা হল জরুরিকালীন। সব কথা মাথায় রেখেই আমাদের কাজ করতে হচ্ছে যাতে সাধারণ মানুষ কোন পরিষেবা থেকে বঞ্চিত না হয়।
এ নিয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর 1 এর মেডিকেল অফিসার ডাক্তার ছোটন মন্ডল জানালেন আমাদের কাজটা জরুরী পরিষেবার মধ্যে পড়ে। তাই মানুষকে যতটা পারছি আমরা পরিষেবা দিয়ে যাচ্ছি। বাইরে থেকে আসা সমস্ত মানুষকে আমরা থার্মাল স্ক্রীনিং করছি। তাদের আগে কোন জ্বর সর্দির হিস্ট্রি আছে কিনা সে বিষয়ে খোঁজ নেয়া হচ্ছে। করোনা যাতে মহামারী আকার ধারণ না করে সে ব্যাপারে আমরা সর্বক্ষণ সচেতন রয়েছি।
এদিকে হরিশ্চন্দ্রপুর 1 নং ব্লক রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জানালেন আমরা হাতে হাত মিলিয়ে ডাক্তার ও নার্সের সঙ্গে সাধারণ মানুষদের সর্বক্ষণ পরিষেবা দিচ্ছি। বাইরে থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকরা স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যাপারে যাতে উৎসাহ বোধ করে সেজন্য আমরা সব সময় এলাকায় ক্যাম্পিং চালাচ্ছি। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে বলছি অযথা আতঙ্কিত না হতে । গুজবে কান না দিতে।

News: তনুজ জৈন;

Share this:

You may also like