Education North Bengal Siliguri WestBengal

“1 Ph.D=1 tree plantation” এর মতো নতুন চিন্তা প্রয়োগের জন্য পুরুস্কার রায়গঞ্জ বিশ্ব বিদ্যালয়ের অধ্যাপকে।

–স্থিতিশীল চিন্তাধারায় বিশ্বাসী রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের সহকারী ত রুণ অধ্যাপক ড: তাপস পাল গত ৯ই ফেব্রুয়ারী দিল্লী ফ্রেন্ডশিপ ফোরামের তরফে ‘ভারত এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ এবং ‘লিডিং এডুকেশনিস্ট অফ ইন্ডিয়া অ্যাওয়ার্ড’-এ সন্মানীত করলেন সিকিমের রাজ্যপাল রণধীর শিং | তার সমাজ উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষাক্ষেত্রে শিক্ষা দান, শিক্ষার্থীদের ব্যবহারিক জ্ঞানে উৎসাহিত করা প্রভৃতির জন্য |
এর আগেও তিনি অনেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সম্মানে সম্মানিত হয়েছেন | ২০১৬ সালে ‘ইন্টারন্যাশনাল ইয়ং ইন্ডিয়ান জিওগ্রাফার অ্যাওয়ার্ড’, ২০১৭ সালে ইন্টারন্যাশনাল বেনেভোলেন্ট রিসার্চ এডুকেশন-এর তরফ থেকে ‘ন্যাশনাল টিচিং এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’, ‘ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড ফর রিসার্চ অন ফোক জিওগ্রাফি’ পান | ২০১৮ সালে ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েশন অফ রিসার্চ এন্ড ডেভেলপেড অর্গানাইজেশনের তরফ থেকে ‘আই. এ. আর. ডি. ও অ্যাওয়ার্ড ফর ইয়ং সায়েন্টিস্ট’ বা যুব-বিজ্ঞানী সন্মান, ইনটারন্যাশনাল অ্যামেরিকান কাউন্সিল ফর রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ( আইএসিআরডি ) ফ্যাকাল্টি অ্যাওয়ার্ড ২০১৮ প্রদত্ত ‘ ইনটারন্যাশনাল বেস্ট রিসার্চার অ্যাওয়ার্ড ‘ পেয়েছেন |
কেবলমাত্র শিক্ষাজগৎই নয় পরিবেশ সংরক্ষণের জন্য তিনি বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন | রায়গঞ্জ শহরে তিনি প্রথম ‘ইকোফ্রেন্ডলি ম্যারেজ’-এর প্রচলন করেন | এছাড়াও রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ‘ওয়ান পি এইচ ডি ওয়ান ট্রি’ চালু করেন | রায়গঞ্জ শহরের পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশের চৌদ্দ গ্রামের সাস্টেইনেবেল ডেভেলপমেন্ট বা সাস্টেইনেবেল সিটি গড়ে তোলার জন্য তার অভিজ্ঞতার মাধ্যমে বিভিন্ন প্রস্তাবনা পৌরসভাকে দিয়েছেন, যা পৌরপতি কর্তৃক বাস্তবায়িত হচ্ছে | ২০১৬ সালে থাইল্যান্ড-এ তিনি ‘ সুন্দরলাল বহুগুনা নেচার কনসারভেশন অ্যাওয়ার্ড’ পান | তার এই পরিবেশ সংরক্ষণমূলক কর্মের জন্য কোচবিহারের একটি এনজিও এবং উত্তর দিনাজপুরের ইটাহারের ক’জন কমিটির তরফে তাকে ‘পরিবেশ-বন্ধু’ সন্মান পেয়েছেন | তিনি রাষ্ট্রপুঞ্জের আয়োজনে ইন্দোনেশিয়া ও কোরিয়াতে সাস্টেইনেবেল ডেভেলপমেন্ট নিয়ে বিভিন্ন সেমিনারে অংশগ্রহণ করেছেন | ড: পাল শিক্ষা ক্ষেত্রে সাস্টেইনেবেল এডুকেশন-এর কথা বলেন | প্রতিটি গবেষণার ধারণাকে বাস্তবায়ন করতে ‘স্থিতিশীল’ শব্দটি প্রয়োগে এবং তা দৃষ্টান্তমূলক ভাবে উপস্থাপনায় বিশ্বাসী | কিছুদিন আগে বিশ্ববাসীর মধ্যে ও মিডিয়াতে যখন আমাজন ফরেস্ট ফায়ার নিয়ে উদ্বিগ্নতা দেখা দেয় ঠিক সেই সময় সুদূর ইউনিভার্সিটি অফ রণডোনিয়া থেকে আমাজন গবেষণার ডাক পান ‘পরিবেশ বন্ধু’ ড: তাপস পাল প্রফেসর ফ্লাভিও ডি সাও পেড্রোর কাছ থেকে | সম্পদ মানুষের ব্যবহারের জন্য নয় এবং আমাজনকে তার জীববৈচিত্রতার সাথে স্বাভাবিক ভাবে থাকতে দেওয়ার বার্তার মাধ্যমে ব্রাজিলের GEITEC-এর সাথে সহযোগী গবেষক হিসেবে এবং রণডোনিয়া সরকারের তরফ থেকে আমাজন ফরেস্ট নিয়ে গবেষণার ছাড়পত্র নিয়ে এসেছেন সারাজীবনের জন্য |
একজন শিক্ষাবিদ ও ভূগোলবিদ হিসেবে শিক্ষাক্ষেত্র ও পরিবেশ সংরক্ষণ ও সচেতনতার পাশাপাশি সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক জগতেও তার অবাধ বিচরণ | তার লেখা দলিত পেশায় কর্মরত শ্রমিকদের নিয়ে ‘যাদের করেছো অপমান’, মোটরবাইকেএক ভূগোলবিদের দৃষ্টিতে পচিমবঙ্গ সফর নিয়ে ‘৩৭দিন’, হিন্দু শাস্ত্র ও ভূগোলের সম্পর্ক নিয়ে ‘বৈদিক জিওগ্রাফি’ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য ও প্রচারিত | ড: পাল স্থিতিশীল উন্নয়নের চিন্তাধারায় বিভিন্ন প্রত্যন্ত বা লুপ্তপ্রায় উপজাতি গোষ্ঠী, ট্রাডিশনাল নলেজ, ফোক বা ইন্ডিজেনাস কালচার, জেন্ডার ইস্যু, পরিবেশ সংরক্ষণ এই সমস্ত বিষয়ের অপর গবেষণা করছেন ও স্কলারদের গবেষণা কথায় অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছাত্রছাত্রী ও সমাজকে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত করা ও উন্নয়নের মাধ্যমেই নিজেরও উন্নতি সম্ভব

Share this:

You may also like