National North Bengal WestBengal

নিষিদ্ধ পল্লীতে রঙ ছড়ালেন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে যুক্ত তরুণ তরুণীরা।

নিষিদ্ধ পল্লীতে রঙ ছড়ালেন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে যুক্ত তরুণ তরুণীরা।

হক জাফর ইমাম ।মালদা।
নিষিদ্ধ পল্লীতে রঙ ছড়ালেন একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে যুক্ত তরুণ তরুণীরা। রবিবার সকালে রোটার্যােক্ট ক্লাব অব মালদা সেন্ট্রালের পক্ষ থেকে নিষিদ্ধ পল্লীতে বেড়ে উঠা শিশু, কিশোর, কিশোরীদের হাতে তুলে দেওয়া হল রঙ, তুলি, পেন্সিল, রবার ও ড্রয়িং বই। মালদা শহরের ১২ নং ওয়ার্ডের হংস গিরি লেনে রয়েছে নিষিদ্ধ পল্লী। সূর্যের আলো এখানে প্রবেশ করলেও বাসিন্দাদের জীবনে নেই আলোর ছোঁওয়া।

এখানে জন্ম নেওয়া শিশুদের জীবন সমাজের আর পাঁচটা শিশুদের থেকে অনেকটাই আলাদা। অন্যান্য বাচ্চাদের মতো তারা বিদ্যালয়ে গিয়েও যেন সঙ্কুচিত হয়ে থাকে। তাদের জীবন যেন বর্ণহীন। সম্ভ্রান্ত ঘরের সন্তানদের মতো রবিবার দিন তারা যায় না আঁকা শেখার সেন্টারে। এবার সেই শিশুদের জীবন কিছুটা হলেও রাঙিয়ে দিল এই সংগঠনের সদস্য সদস্যারা। মাসের শেষ রবিবারের দিনটা নিজেদের ফ্ল্যাট বা বাড়ির সোফা সেটে গা এলিয়ে বসে টিভিতে প্রিয় অনুষ্ঠান না দেখে জয়দীপ দে, অমিত মিশ্র, আশাবরী গুপ্ত, সুপর্ণা মানি, অভিষেক সিংহ সহ প্রায় জনা পনেরো তরুণ তরুণী ছুটলেন নিষিদ্ধ পল্লীতে। তাঁদের হাতে রঙের বাক্স, তুলি, ড্রয়িং বই সহ আঁকার প্রায় সব সরঞ্জাম। হংস গিরি লেনের মন্দিরে গিয়ে বসলেন তাঁরা। হাতছানি দিয়ে ডাকতেই প্রাথমিক সঙ্কোচ কাটিয়ে ভিড় জমালো শিশু, কিশোর, কিশোরীদের দল। অদ্ভূত শৃঙ্খলায় সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে তারা নিল রং, তুলি। তাদের চোখে মুখে তখন ফুটে উঠেছে রঙিন অভিব্যক্তি। তৃপ্তি চুঁইয়ে পড়ছে এই সমাজ সচেতন তরুণ তরুণীদের মুখেও। সংগঠনের সভাপতি জয়দীপ দে জানালেন, আমরা চাই সবার জীবন রঙিন হোক। তাই এই উদ্যোগ। ইংরেজবাজার পুরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর প্রসেনজিত দাস বলেন, অত্যন্ত শুভ উদ্যোগ। এই ধরণের ছোট ছোট পদক্ষেপই গড়ে তুলতে পারে এক বর্ণময় ভারত।

Share this:

You may also like