North Bengal Siliguri

বৌদিকে থেঁতলে খুনের অভিযোগ দেওরের বিরুদ্ধে।

বৌদিকে থেঁতলে খুনের অভিযোগ উঠলো দেওরের বিরুদ্ধে।ঘটনাটি ঘটেছে মালদা মানিকচক থানার উগ্ৰীটোলা গ্রামে।ঘটনার পর থেকে পলাতক মূল অভিযুক্ত দেওর আনুয়ার হোসেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে সরকারি জমির গাছ কাটা নিয়ে পারিবারিক বিবাদে দেওরের হাতে খুন হয়েছে বৌদি।ইট দিয়ে মহিলার মাথায় আঘাত করা হয় বলে অভিযোগ।হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।।ঘটনাস্থলে মোতায়েন বিশাল পুলিশ বাহিনী। মালদা মানিকচক থানার পুলিশ মৃত মহিলার দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে পাঠায়।
পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, মৃত মহিলার নাম মহেলা বিবি(৪৫)।স্বামী নুরুল ইসলাম। সোমবার সকালে পারিবারিক বিবাদের জেরে সংঘর্ষে মহিলার মৃত্যু হয়।
পরিবার সূত্রে জানাগেছে, নুরুল ইসলাম ও তার ভাই আনুয়ার আলীর মধ্যে জায়গা সহ বাঁশ ঝাড় নিয়ে দীর্ঘদিনের বিবাদ।মাঝেমধ্যেই সেই নিয়ে বিবাদ লেগেই থাকতো। এই দিন সকালে নিজ জমির কাছে বাঁধের ধারে সরকারি গাছ কাটছিল আনুয়ার হোসেন, সেই সময় তার বৌদি তাকে বাধা দেয় এবং দুইজনের মধ্যে বচসা শুরু হয় সেই বচসার সময় আনুয়ার হোসেন বাঁধ থেকে পড়ে গিয়ে আহত হয়।সেই সময় আহত দেওরকে নিয়ে হাসপাতালে যাচ্ছিল বৌদি মহেলা বিবি।হাসপাতালে যাবার সময় আনুয়ার নিজের বাড়ীর সামনে ফাঁকা পেয়ে মহেলা বিবিকে ইট দিয়ে থেঁতলে মারতে থাকে বলে অভিযোগ।তড়িঘড়ি স্থানীয়রা সহ পুলিশ ছুটে এসে মহিলাকে মালদা মানিকচক গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিৎসকেরা মহিলাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর এলাকার ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।পরিস্থিতি মোকাবেলায় ছুটে আসে বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশ তিন জনকে আটক করলেও মূল অভিযুক্ত আনুয়ার হোসেন পলাতক।অভিযুক্তের বাড়িতে মোতায়েন বিশাল পুলিশ বাহিনী।দেহ ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতালের মর্গে পাঠান। সম্পূর্ণ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদা মানিকচক থানার পুলিশ।

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like