North Bengal

গৃহবধূর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ প্রতিবেশীর বিরুদ্ধ।

জায়গা দখল করাকে ঘিরেই শুরু হয়েছিল গোলমাল তারই জেরে গৃহবধূকে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল প্রতিবেশী বিরুদ্ধে। গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনা শোনার পর গ্রামেরই একাংশ ক্ষিপ্ত বাসিন্দা অভিযুক্ত প্রতিবেশী দুষ্কৃতীর বাড়ি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি ঘটেছে মোথাবাড়ি থানার আমরিটোলা গ্রামে। সেই অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূ মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছিলেন। কিন্তু শনিবার ভোরে ওই গৃহবধূ নুরবানু বিবির (২৪) মৃত্যু হয় ।

আর এই ঘটনার জেরে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন আমরিটোলা গ্রামের একাংশ বাসিন্দারা । জনরোষ আছড়ে পরে অভিযুক্ত হামলাকারী মোজাম্মেল হকের বাড়িতে।
এদিন সকালে গৃহবধূর মৃত্যুর খবর গ্রামে এসে পৌঁছাতে স্থানীয় বাসিন্দারা হামলাকারী মোজাম্মেলের বাড়িতে ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এমনকি অভিযুক্তের বাড়ি থেকে একটি বন্দুক ও কয়েক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করে ক্ষিপ্ত গ্রামবাসীরা। পরে সেটি পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে বলে জানা যায়। উত্তেজনার পরিস্থিতি সামলাতে এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে পৌঁছায় মোথাবাড়ি থানার পুলিশ।

তবে এই ঘটনায় অভিযুক্তদের কাউকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারি নি।পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত নুরবানু বিবির সঙ্গে প্রতিবেশী মোজাম্মেল হক, আহিউল শেখের একটি জমির দখল নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গোলমাল চলছিল । গত ১১ (রবিবার) মার্চ নুরবানুর স্বামী আয়েল শেখ বাড়িতে ছিলেন না। তিনি দিল্লীতে শ্রমিকের কাজে রয়েছেন। ওই গৃহবধূর নাবালক চার ছেলেমেয়ে রাও ঘটনার দিন পাশের বাড়িতে ছিল। এই সুযোগে ওই গৃহবধূকে বাড়িতে একা পেয়ে তার গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় অভিযুক্ত মোজাম্মেল ও তার আত্মীয়রা। পরে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ওই গৃহবধূকে পাড়া-প্রতিবেশী উদ্ধার করে ভর্তি করান মেডিকেল কলেজে। এরপর ছয়দিন চিকিৎসা চলার পর শনিবার কাকভোরে নুরবানুর মৃত্যু হয়।এদিকে এদিন সকালে আমরিটোলা গ্রামে গৃহবধূর মৃত্যুর খবর জানাজানি হতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন গ্রামবাসীরা। এরপর শতাধিক গ্রামবাসীরা প্রতিবাদে সোচ্চার হয় । অভিযুক্ত মোজাম্মেল ও তার হামলাকারী আত্মীয়দের বাড়িতে চড়াও হয় এবং ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।
মৃতের এক দাদা এজাজুল শেখ জানিয়েছেন, জায়গার দখল নিয়ে দিদিকে মোজাম্মেল ও তার পরিবার পুড়িয়ে খুন করেছে। এই ঘটনায় সাতজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।মোথাবাড়ি থানার পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক । তাদের খোঁজ চালানো হচ্ছে । ক্ষিপ্ত গ্রামবাসীদের একাংশ অভিযুক্তদের বাড়িঘর ভাঙচুর করেছে। ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও কয়েকটি কার্তুজ পুলিশের কাছে জমা দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। পুরো ঘটনাটি তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like