North Bengal

গৃহবধূ ধর্ষণের বাধা দেওয়ায় হাঁসুয়া দিয়ে কুপিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ যুবকের বিরুদ্ধে ।

আদিবাসী গৃহবধূ ধর্ষণের বাধা দেওয়ায় হাঁসুয়া দিয়ে কুপিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাতে মালদা হবিবপুর থানার কানতুরকা গ্রামে। বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে সরষে খেতেই ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয় বলে অভিযোগ। কিন্তু সেই ধর্ষণে বাধা দেয় আদিবাসী ওই গৃহবধূ। তখনই তাঁকে কুপিয়ে খুন করার চেষ্টা চালায় অভিযুক্ত প্রতিবেশী যুবক । বিষয়টি জানাজানি হতেই গ্রামবাসীদের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত যুবক উজ্জ্বল বর্মন। ঘটনায় উজ্জ্বল বর্মনের বিরুদ্ধে হবিবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ৩০ বছর বয়সী আদিবাসী ওই গৃহবধু তার ২ ছোট ছেলেমেয়েকে নিয়ে বাড়িতে একাই থাকেন। ওই গৃহবধূর স্বামী তিন মাস আগে দিল্লিতে শ্রমিকের কাজে গিয়েছেন। বাড়িতে একা থাকার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অভিযুক্ত উজ্জ্বল বর্মন ধর্ষণের চেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ।প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছে, মুখে আঘাত থাকায় ওই গৃহবধূ এখনো পরিষ্কার করে কথা বলতে পারছেন না।

তার ওপর নির্যাতন চালানোর পাশাপাশি ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা সেটিও এখন পরিষ্কার হয় নি। তবে ওই গৃহবধূর মেডিকেল পরীক্ষা করা হবে।আদিবাসী ওই গৃহবধূর এক আত্মীয় জানিয়েছেন, বুধবার রাতে চার ও পাঁচ বছরের ছেলেমেয়েকে নিয়ে বাড়িতে একাই ছিলেন ওই গৃহবধূ । সেই সময় অভিযুক্ত যুবক দরজা ভেঙে তাদের বাড়িতে ঢুকে। অভিযুক্তের হামলার বিষয়টি দেখেই ওই দুই শিশু পাড়া-প্রতিবেশীদের কাছে ছুটে যায়। ততক্ষণে অভিযুক্ত উজ্জ্বল বর্মন ওই গৃহবধূকে পাশের সর্ষের খেতে তুলে নিয়ে যায়। সেখানে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। শিশুদের মুখ থেকে আমরা তাদের মাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা জানতে পেরে হইচই করে ছুটে আসি। দেখি জমিতে রক্তমাখা অবস্থায় পড়ে রয়েছে ওই মহিলা। পুরো বিষয়টি নিয়ে পুলিশকে অভিযোগ জানানো হয়েছে।
মালদা হবিবপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে, মহিলার উপর নির্যাতন এবং ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like