North Bengal

কিশোরী তুলে নিয়ে গিয়ে বদ্ধ ঘরে শ্লীলতা হানির অভিযোগ দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে..

ভালোবাসার দিন ১৪ ফেব্রুয়ারির বিকেলে ঘনিষ্ঠ হয়ে রেললাইন ধার ধরে হাঁটছিল দুই কিশোর কিশোরি৷ লাইন ধরে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় তাদের হাঁটতে দেখে লাইনের ধারেই গোরু চড়াতে থাকা দুই ব্যক্তি তাদের তাড়া করেন৷ তাড়া খেয়ে প্রেমিকাকে ছেড়েই পালাতে শুরু করে প্রেমিক৷ পিছন দিকে তাকায়নি সে৷ বেশ খানিকক্ষণ ছোটার পর তার খেয়াল পড়ে, প্রেমিকা তার সঙ্গে নেই৷ সে আবার প্রেমিকাকে খুঁজতে যায়৷ তখনই দেখে, প্রেমিকা কাঁদতে কাঁদতে আসছে৷ কিশোরী তাকে জানায়, ওই দুই ব্যক্তি একটি ঘরে বন্ধ করে রেখে তার শ্লীলতাহানি করেছে৷ এরপরেই মালদা পুলিশের দ্বারস্থ হয় প্রেমিক-প্রেমিকা৷ পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে কিশোরীর বাবা মেয়ের শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের করেন৷ তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার মাঝরাতে অভিযুক্ত দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ ঘটনাটি ঘটেছে মালদা থানা এলাকায়৷নবম শ্রেণির ছাত্র ওই কিশোর জানায়, ভ্যালেনটাইন ডে উপলক্ষ্যে গতকাল বান্ধবীকে নিয়ে সে পুরাতন মালদা স্টেশন যায়৷ তার বান্ধবী ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে৷ এরপর সে বান্ধবীর সঙ্গে রেল লাইন বরাবর হাঁটছিল৷ হঠাৎ দুই ব্যক্তি তাদের তাড়া করে৷ এক ব্যক্তি তার বান্ধবীকে ধরে ফেলে৷ আরেক ব্যক্তি তাড়া করে তাকে স্টেশন পর্যন্ত নিয়ে আসে৷ ভয়ে সে স্টেশন থেকে দৌড়োতে দৌড়োতে বেরিয়ে যায়৷ খানিক পর সে দেখে, লোকটি পিছনে নেই৷ তার বান্ধবীও নেই৷ সে ফের বান্ধবীকে খুঁজতে স্টেশনের দিকে যায়৷ তখনই দেখে তার বান্ধবী কাঁদতে কাঁদতে চলে আসছে৷ সে তাকে জানায়, তার সঙ্গে এক ব্যক্তি খারাপ কাজ করেছে৷ এরপর একটি টোটো চেপে তারা মালদা থানায় যায়৷ সব ঘটনা পুলিশকে খুলে বলে৷ পুলিশ তাদের বাড়িতে খবর দেয়৷ এরপর বাড়ির লোকজন এসে তাদের বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যায়৷ মালদা থানার পুলিশ জানিয়েছে, কিশোরীর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল মাঝরাতে সামসুল শেখ (৪৫) ও নরেন ঘোষ (৫৯) নামে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ তাদের শনাক্ত করেছে কিশোর-কিশোরী৷ ধৃতদের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু করে আজ মালদা জেলা আদালতে তোলা হয়েছে৷

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like