North Bengal

সরস্বতী পুজোয় মায়ের লাল শাড়ি পরা কে কেন্দ্র করে দুই বোনের বচসায় আত্মঘাতী বড় বোন।

Lসরস্বতী পুজোয় মায়ের লাল রংয়ের একটি শাড়ি দুই বোনেরই পছন্দ। সরস্বতী পুজোয় সেই শাড়ি পড়বে তা নিয়ে দুই বোনের মধ্যে বাঁধে জোর বচসা। এবারে সরস্বতী পুজো যেহেতু দুদিন তাই মা নিদান দেন যে শনিবার ছোট মেয়ে ও রবিবার বড় মেয়ে সে শাড়ি পড়বে। শাড়ি পড়া নিয়ে এই অভিমানে আত্মঘাতী হল বড় বোন। নিজেদের শোবার ঘরেই গলায় দড়ি দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয় সে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার মালদা ইংরেজবাজার ব্লকের যদুপুর ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের গোপালপুর গ্রামে। মর্মান্তিক এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। খবর পেয়ে এদিন সকালে ইংরজবাজার থানার পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে আসে পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম হাসি মণ্ডল (১৫))। সে স্থানীয় জহরাতলা হাই স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা নিরঞ্জন মণ্ডল। তিনি ভিন রাজ্যের শ্রমিক। বর্তমানে মুম্বইতে কর্মরত রয়েছেন। বাড়িতে স্ত্রী কাঞ্চনী মণ্ডল দুই মেয়ে হাসি ও খুশিকে নিয়ে থাকেন। সরস্বতী পুজোয় ছোট ছোট মেয়েদের শাড়ি পড়ার রেওয়াজ রয়েছে। সেকারণে এবারের সরস্বতী পুজোয় হাসি ও খুশি দুই বোনই শাড়ি পড়ার বায়না ধরে। কিন্তু তাদের পছন্দ মায়েরই লাল রংয়ের একটি শাড়ি। সেই শাড়ি পড়া নিয়ে শনিবার দুপুরে দুই বোনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। সন্ধ্যা নাগাদও তাদের মধ্যে ঝগড়া চলে। শেষপর্যন্ত দুই বোনকেই খুশি রাখতে মা সিদ্ধান্ত জানান যে এবারে সরস্বতী পুজো যেহেতু দুদিন তাই শনিবার ছোট মেয়ে খুশি ও রবিবার বড় মেয়ে হাসি সেই শাড়ি পরে প্রতিমা দেখতে বের হবে। অভিযোগ, সেই সিদ্ধান্ত সম্ভবত মনোমতো না হওয়ায় অভিমানে শনিবার রাতেই নিজের শোবার ঘরে ফাস দিয়ে আত্মঘাতী হয় হাসি। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে মালদা মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় একটি অস্বভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like