North Bengal

রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী কথা রেখেছেন।

রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারি কথা রেখেছেন। চলন্ত বাস থেকে পড়ে দুর্ঘটনায় নিহত পিএসসি পরীক্ষার্থীর পরিবারের হাতে ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই ২ লক্ষ টাকার চেক তুলে দিল পরিবহন দপ্তর। মঙ্গলবার রাতে চেক নিয়ে মৃতের বাড়ি কোতুয়ালি ছুটে যান ইংরেজ বাজারের বিধায়ক নীহারঞ্জন ঘোষ। সঙ্গে ছিলেন সদ্য তৃনমুল কংগ্রেসে যোগদেওয়া উত্তর মালদার সাংসদ মৌসম বেনজির নুর,জেলা আরটিও তপন কুমার মল্লিক প্রমুখ। এদিন মৃত সন্তোষ সেনগুপ্তর স্ত্রী শোভা সেনগুপ্ত এর হাতে ২ লক্ষ টাকার চেক তুলে দেন নীহার ও মৌসম। চেক দেওয়ার পাশাপাশি নীহারবাবু শোভাদেবীর সরকারি চাকুরির প্রতিশ্রুতি দেন।
প্রসঙ্গত, রবিবার ছিল পিএসসি পরীক্ষা। এমনিতেই অন্যান্য দিনের তুলনায় বাস চলাচল কম ছিল সেদিন। ইংরেজবাজারের কোতুয়ালি এলাকার সন্তোষ সেনগুপ্ত পিএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। তার পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল মিলকি অঞ্চলের খাসকোলের এক স্কুলে। বাস ধরার জন্য সকাল ১০ টার মধ্যেই বাড়ি থেকে বেড় হন সন্তোষবাবু। মালদা শহরের আইটিআই মোড়ে একটি মাত্র বেসরকারি বাসে তখন গাদাগাদি ভিড়। বেউপায় হয়ে বাসের গেটের হ্যান্ডেল ধরে ঝুলতে থাকেন সন্তোষবাবু। তার এক হাতে মোবাইল ছিল। ওই সময় হঠাৎই বাসের হ্যান্ডেল থেকে হাত ছুটে যায় তার। ভাগ্যের পরিহাস বাসটিও তখন ছেড়ে দেয়। ওই সময় বাসের পিছনের চাকা উঠে যায় সন্তোষবাবুর কোমড়ে। মারাত্নক ভাবে জখম হন তিনি।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে মালদা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা সন্তোষবাবুকে মৃত বলে ঘোষনা করেন।
জানাযায়, সন্তোষ সেনগুপ্তর স্ত্রী সহ একটি ২ বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে। পেশায় একটি বেসরকারি প্রাথমিক স্কুলের কম্পিউটার শিক্ষক ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে গভীর শোকাহত হন পরিবার ও এলাকাবাসী। খবর পেয়ে পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারি মৃতের পরিবারের জন্য ২ লক্ষ টাকা অনুদান ঘোষনা করেন। রবিবার রাতেই শুভেন্দু অধিকারির নির্দেশে কোতুয়ালি ছুটে যান ইংরেজবাজারের বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ। শুভেদু অধিকারির বার্তা দেন মৃতের পরিবারের কাছে। কথা দেওয়ার ৪৮ ঘন্টা কাটতে না কাটতে প্রতিশ্রুতি মতো এদিন ২ লক্ষ টাকার চেক তুলে দেন মালদা ইংরেজবাজার এর বিধায়ক তথা ইংরেজবাজার পৌরসভার পৌর পিতা নিহার রঞ্জন ঘোষ ও উত্তর মালদার সাংসদ মৌসম বেনজির নুর,জেলা আরটিও তপন কুমার মল্লিক।

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like