North Bengal

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় “কৃষক বন্ধু” প্রকল্পের রেজিস্ট্রেশনের শুভ সূচনা।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির অনুপ্রেরণায় “কৃষক বন্ধু” প্রকল্পের রেজিস্ট্রেশনের শুভ সূচনা হয় মালদা ইংরেজবাজার ব্লকে। অনলাইন পদ্ধতিতে বিভিন্ন মৌজা ধরে কৃষকদের নাম নথিভুক্তিকরণের কাজ করা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে। সোমবার সকাল ১১ টায় ইংরেজবাজার ব্লকে এই প্রকল্প শুরু হওয়ার সময় উপস্থিত হয়েছিলেন বিধায়ক নিহার ঘোষ, বিডিও দেবর্ষি মুখার্জি সহ সংশ্লিষ্ট দফতরের আধিকারিকরা । বছরে দুটি মরশুমে কৃষকদের চাষের ক্ষেত্রে ন্যূনতম এক হাজার টাকা এবং সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা করবে রাজ্য সরকার।

যার ফলে কৃষকদের আর কারো কাছ থেকে ঋণ নিয়ে ফসল চাষ করার জন্য নির্ভর করে থাকতে হবে না । তবে এক্ষেত্রে কৃষকদের নিজেদের জমি থাকাটা আবশ্যিক বলে জানিয়েছেন প্রশাসনের কর্তারা।ইংরেজ বাজার ব্লকের বিডিও দেবর্ষি মুখার্জি বলেন, রাজ্যজুড়ে “কৃষক বন্ধু” প্রকল্পের রেজিস্ট্রেশনের কাজ সোমবার থেকে শুরু হয়েছে। এদিন এই ব্লকের যদুপুর ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের মুসলিমপুর এবং গোবিন্দপুর মৌজায় এক হাজার কৃষকের নাম নথিভুক্ত করনের কাজ করা হয়েছে। এই “কৃষক বন্ধু” প্রকল্পের মাধ্যমে চাষিরা ফসল চাষের ক্ষেত্রে নিজেদের জমি অনুসারে আর্থিক সহায়তা পাবেন। যাদের এক একর জমি রয়েছে তাদের বছরে দুটি মরশুমে পাঁচ হাজার টাকা করে আর্থিক সহযোগিতা করা হবে। এক একরের নিচে যাদের জমি রয়েছে সেইসব কৃষকেরা নূন্যতম এক হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা পাবেন । এর ফলে আগের তুলনায় চাষীদের ফসল চাষের ক্ষেত্রে অনেকটাই আগ্রহ বেড়ে যাবে।
বিডিও আরও বলেন, প্রতিটি মৌজায় গড়ে এক হাজার কৃষকের নাম নথিভুক্ত করন করার লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে । সোমবার দুটি মৌজায় কৃষকদের নাম নথিভুক্ত করন করা হয়েছে।

আগামীতে অন্যান্য মৌজাগুলিতে একই ভাবে কাজ করা হবে।
ইংরেজবাজারের বিধায়ক নিহার ঘোষ বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর এটি একটি ঐতিহাসিক প্রকল্প । কৃষকেরা রবিশস্য করার সময় একবার আর্থিক সহযোগিতা পাবেন । আবার বর্ষার মৌরশুমে ধান চাষের সময় সরকারিভাবে আর্থিক সহযোগিতা পাবেন । রাজ্য সরকার কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করার ক্ষেত্রে যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে তা অভিনব। বিগত দিনে এরকম ভাবে কোন সরকার কৃষকদের পাশে দাঁড়ায় নি। যা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি করে দেখিয়েছেন। এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের চাষের ক্ষেত্রে আর্থিক সমস্যা অনেকটাই মিটে যাবে আশা করা যায়।

News: হক জাফর ইমাম।

Share this:

You may also like